কিভাবে বেষ্ট রিভিউ আটিকেলের জন্য আমাজন থেকে বিজয়ি প্রোডাক্ট গুলা বেছে নিবেন ?

রিভিউ আটিকেলের প্রডাক্ট লিস্টিং করার জন্য, আমরা সবাই আমাজনের বেষ্ট সেলার র্যাকিং, কতগুলা রিভিউ, কত পার্সেন্ট পজেটিভ রিভিউ, ব্রান্ড ভেলু ইত্যাদি এসব পজেটিভ বিষয় গুলা দেখি।

কিন্তু আসলেই কি এগুলা দেখে ই প্রডাক্ট লিষ্টিং করবেন? এগুলা যথেষ্ট নাকি আর কোন বিষয় আছে? 

আসেন আজ আমার অভিজ্ঞতা থেকে শেয়ার করি, কি কি বিষয় গুলা দেখা উচিৎ। এবং কিভাবে সেরা প্রোডাক্ট গুলো বেছে নিতে পারি।

সতর্কতা: লেখাটি কোন ভাবে কপি করে অন্য কোথাও পাবলিস্ট করতে পারবেন না। সিউরিটির জন্য পার্সোনাল ব্লগে পাবলিষ্ট করে দিয়েছি।

প্রথমে আপনার জন্য একটা প্রশ্ন।

 মনেকরেন আপনার কিওয়ার্ড ” “Best Mobile Phone”

তো আপনি Samsung এর একটা মডেল কে ফাষ্টে রাখলেন যার, 15MP Camera,  5″ Display,   16  GB Rom, 2 GB Ram etc দাম ১২,০০০ টাকা।

২য় পজিশনে প্রায় একই ফিচারের Vivo দাম ১২,২০০ টাকা।

৩য় পজিশনে ও প্রায় একই ফিচারের Huawei এর একটি মডেল রাখলে দাম ১২,৫০০ টাকা।

এগুলো আপনি সিলেক্ট করেছেন কারন সবগুলো, রেটিং ভালো, বেস্ট সেলিং লিস্টে আছে, এবং ভালো ভালো ব্রান্ড থেকে এসেছে।

এখন প্রশ্ন হলো, যদি কোন ব্যক্তি মোবাইল রিভিউ দেখতে আসে।  সে কি এই ৩ টা মডেলের রিভিউ দেখে সঠিক ডিসিশন নিতে পারবে? আপনি কি মনে করেন?

আমার মনেহয়, ঐ ৩ টা থেকে কোনটা ভালো এটার জন্য গুগলে আবার সার্চ করবে। (তবে সব ক্ষেত্রে সমান নয়)

আমরা, অনেকেই এ ধরনের ভুলটা করি। যদি ঐ ৩টি মডেল কে আরো ডিপলি গবেষণা করে, একটা রাখতাম। তাহলে ভিজিটর এমন কনফিউশনে পড়তো না।  

হয়তো, সবকিচু একটু জটিল মনে হতে পারে।

চলেন নিচে বিস্তারিত আলোচনা করি।

প্রডাক্ট রিসার্চ করার জন্য কোন বিষয় গুলা গুরুত্বপূর্ণ? 

প্রডাক্ট রিসার্চ করার জন্য, প্রথমে আপনার সিলেকটেড কিওয়ার্ড কে, ভালোভাবে বোঝার চেষ্টা করুন।

তারপর, প্রডাক্ট টি কেমন, এ প্রডাক্টের কি কি ফিচার থাকতে পারে গুগল করে বিস্তারিত পড়ে ফেলুন বুঝতে নমস্যা হলে Youtube থেকে একটা ভিডিও দেখে নিন। 

প্রডাক্ট এর জন্য টপ ব্র্যান্ড কারা এটা Google করে দেখে নিন এবং নোট করে ফেলুন।

এবার, এই প্রডাক্ট এর অডিয়েন্স কারা তা ভালোভাবে বোঝার চেষ্টা করুন।

উদা: কিওয়ার্ড এমন হতে পারে

1. “Best Bender for ice breaking” 

2. “best blender with 20 oz container”

3. “Best blender under $50”

4. “best personal blender for workout”

প্রথম কিওয়ার্ড টি সার্চ করে ভিজিটর এমন একটি ব্লেন্ডার খুজতেছে যেটার, মোটর এবং ব্লেড অনেক শক্তিশালি হবে যা দিয়ে সহজে বরফ ভেঙ্গে ফেলা যায়।

২য় কিওয়ার্ড টি সার্চ করে ভিজিটর এমন একটি ব্লেন্ডার খুজতেছে যেটার সাথে, 20 oz ক্যাপাসিটি কনটেইনার থাকা বাধ্যতামূলক।

৩য় কিওয়ার্ড টি সার্চ করে ভিজিটর এমন একটি ব্লেন্ডার খুজতেছে যেটার দাম অবশ্যই $50 এর নিচে হতে হবে।

৪র্থ কিওয়ার্ডের ব্লেন্ডারটি যারা খুজতেছে তারা বিশেষ করে বাইরে ব্যায়াম করতে বের হয় প্রতিদিন। তাহলে তাদের ব্লেন্ডার টি হবে পোর্টেবল এবং রিচার্জেবল যেটা সহজে ব্যাগে করে বহন করা যায় এবং যেখানে সেখানে বসে জুস বানানো যায়। (উদাহরণ)

ইত্যাদি অনেক টাইপের কিওয়ার্ড থাকবে, কিন্তু আপনাকে বুঝতে হবে অডিয়েন্ড কারা তারা কি ধরনের প্রডাক্ট চায়। প্রতিটা প্রডাক্ট সিলেক্ট করার আগে এই বিষয় টা আগে নিশ্চিত করতে হবে।

এরপর, বুঝতে হবে কাস্টমার এর ডিমান্ড।

এখানে প্রথমে বলে রাখি, মার্কেটিং কোন সাইন্স নয়, মানবিক নয়, প্রোগ্রাম নয়, ফিজিক্স নয়, শুধুমাত্র ট্রিকস। (কোন একটা ইংরেজি ব্লগে পড়েছিলাম মনে নাই বলে ক্রেডিট দিতে পারলাম না, তবে ডিরেক্ট কপিও করিনাই) 

তো আপনার টার্গেটেড কাস্টমার বা অডিয়েন্স কেমন হতে পারে সেটা আপনাকে পরিস্থিতি বুঝে বিবেচনা করতে হবে।

কাস্টমারের বয়স, প্রডাক্টের ফিচার, প্রাইস, ইত্যাদি অনেক কিছু এই বিবেচনায় আসতে পারে। 

বিষয় টা একটু ডিপ এবং অনেকে এতক্ষনে ভাবতে পারেন এসব বোঝার দ্বায়িত্ব তো রাইটারের ওপর।

তবে বিশ্বাস করেন, আপনি মার্কেটার হিসেবে এটা আপনাকে বুঝতে ই হবে। 

উদাহরণ: আপনার কিওয়ার্ড যদি হয়: “Best Bender for ice breaking” এবং যদি এটার জন্য ৫ টা প্রডাক্ট সিলেক্ট করেন।

এমন ক্যাটাগরি হতে পারে: 

  • ১নং প্রোডাক্ট : বেস্ট ফর পাওয়ারফুল মোটর।
  • ২নং প্রোডাক্ট : বেস্ট ফর চিপ প্রাইস।
  • ৩নং প্রোডাক্ট : বেস্ট ফর কুইক অপারেশন।
  • ৪নং প্রোডাক্ট : বেস্ট ফর লার্জ সাইজ।
  • ৫নং প্রোডাক্ট : বেস্ট ফর ওল্ডার পিপল।

(এগুলো উদাহরণ)

তো আপনাকে এভাবে কাস্টমার দের চাহিদার ওপর নির্ভর করে, আপনাকে ক্যাটেগরি করতে হবে এবং এই প্রতি ক্যাটাগরির জন্য বেস্ট প্রোডাক্ট টি সিলেক্ট করতে হবে।

এবং রাইটার কে আর্টিকেল ইনস্ট্রাকশন পঠানোর সময়, এগুলা প্রডাক্ট এর সাথে মেনশন করে দিবেন। এতে করে রাইটার রিসার্চ করার সময় খুব সহজে বুঝতে পারবে কোন প্রডাক্ট এর জন্য কোন বিষয় টাকে এফোর্ড দিতে হবে।

এবার আসি ঐ নিদিষ্ট ক্যাটাগরি টপ প্রডাক্ট এর জন্য কিভাবে টপ প্রডাক্ট টা সিলেক্ট করবেন।

আবারও উদাহরণ হিসাবে:  “Best Bender for ice breaking” কিওয়ার্ড কে নিলাম।

১. প্রোডাক্ট টা কি? একটা ব্লেন্ডার যেটা দিয়ে বরফ ভেঙ্গেফেলা যায় খুব সহজে।

২. প্রোডাক্ট টির বিশেষ দিক থাকবে কি? ব্লেড টি সহজে বরফ ভাঙ্গতে পারবে। 

৩. প্রোডাক্ট এর ক্যাটাগরি? ১নং প্রোডাক্ট : বেস্ট ফর পাওয়ারফুল মোটর। মানে বরফ ভাঙতে পারে এমন একটি ব্লেন্ডার এবং পাওয়ারফুল মটর, এসব ডিমান্ড পুরন করা আমাজনের সেটা মডেলটি।

আশা করি, এবার আপনার সুবিধা হয়ে গেল সেরা প্রডাক্ট টি বেছে নেয়ার জন্য।

কিভাবে প্রোডাক্ট বেছে নেবেন? 

এখন আপনি আমাজন চলে যান, এবং বিভিন্ন টার্ম লিখে টার্গেট প্রোডাক্ট খুঁজে পেতে সার্চ করুন। এবং নিউ ট্যাবে যে গুলো রিলেটেড মনে হচ্ছে ওপেন করে রাখুন।

দরকার পড়লে বা পাশে আমাজনের ফিল্টার টি কে কাজে লাগাতে পারেন।

এবার যেকোন একটা প্রোডাক্ট এর নিচে টেকনিক্যাল ফিচারের মধ্যে বিভিন্ন ক্যাটেগরিতে আমাজনের বেস্ট সেলিং লিস্ট এ চলে যান, এবং রিলেটেড মনে হলে নিউ ট্যাবে ওপেন করুন সেগুলো।

প্রতিটা, প্রোডাক্ট এর নিচে রিলেটেড গুলা দেখতে পাবেন সেগুলো নিউ ট্যাবে ওপেন করুন।

প্রোডাক্ট এর টপ ব্র্যান্ড গুলা লিখে সার্চ করুন দেখুন টার্গেটড মডেল আছে কিনা।

নোট: রিলেটেড/টার্গেটড যেগুলা নিউ ট্যাবে অপেন করতে বলেছি এখানে আপনার টার্গেট শুধু কিন্তু এটা ” ১নং প্রোডাক্ট : বেস্ট ফর পাওয়ারফুল মোটর। মানে বরফ ভাঙতে পারে এমন একটি ব্লেন্ডার এবং পাওয়ারফুল মটর “

নির্দিষ্ট ক্যাটাগরির জন্য কোন মডেল টি ফাইনাল করবে? 

এবার, ব্র্যান্ড ভেলু, এভারেজ রেটিং, মোস্ট রিসেন্ট রেটিং, আমাজন চয়েজ র্যাঙ্কিং, এবং সব ফিচার গুলা ভালোভাবে পড়ে, ইত্যাদি বিচার করে, প্রতিটা মডেল কে তুলনা করে “বেস্ট ফর পাওয়ারফুল মোটর” এটার জন্য একটা মডেল কে বিজয়ি করুন।

এভাবে প্রত্যেক টা ক্যাটাগরির জন্য একটা প্রোডাক্ট কে বেষ্ট করুন। 

তবে প্রডাক্ট নিয়ো ঘাটাঘাটি করতে করতে এতক্ষনে অনেক অভিজ্ঞতা হয়ে যাবে এজন্য বাকি ক্যাটেগরি গুলার জন্য বেষ্ট প্রডাক্ট কে সিলেক্ট করতে প্রথমটার মত এত সময় লাগবে না।

এবং, নতুন কোন ক্যাটাগরি রাখার প্লান ও মাথায় আসবে। তাছাড়া যেগুলা নিউট্যাব করেছিলেন ওগুলা সিলেক্টটেড অন্য কোন ক্যাটেগরির জন্য বেস্ট হতে পারে। উদাহরণ হিসেবে হটাৎ করে খুবই অল্প প্রাইসের মধ্যে এমন একটা মডেল পেলেন যেটা ফিচার, রেটিং খুবই ভালো। তো এটাকে “বেষ্ট ফর চিপ প্রাইস ” এর জন্য সিলেক্ট করে রাখলেন।

এভাবে আপনি সব প্রোডাক্ট গুলা সিলেক্ট করে ফেলুন। হতে পারে ৫, ৭, ৮ বা ১০ টা।

তবে ১৫ টা বা ২০ টা প্রোডাক্ট এর ক্ষেত্রে ৫টি করে প্রোডাক্ট নিয়ে আলাদা ৩টা বা ৪টা মেইন ক্যাটেগরি করতে পারেন। এবং সেই মেইন ক্যাটাগরি আন্ডারে প্রতিটি প্রোডাক্ট কে উপরে দেখানো ক্যাটাগরি করবেন। 

কিছু গুরুত্বপূর্ন শেষ কথা:

এবং আশা করি আপনি সেরা প্রডাক্ট গুলা সিলেক্ট করতে সক্ষম হবেন যেটা দিয়ে একটা সেরা কনর্ভাসনএবল আটিকেল রাইটার লিখতে পারবে।

আর যদি নিজে রাইটার হন তো, বিশ্বাস করেন আপনার কনটেন্ট টি লেখার জন্য ৫০% রিসার্চ করা শেষ।

সামান্য জ্ঞান নিয়ে, বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে অনেক কিছু এলোমেল ভাবে লিখে ফেললাম, এবং লেখাটা খুব বেশ এডিট করা বা ফরমেট করা হবেনা। 

অতিরিক্ত কথা:

এটি লিখতে যেয়ে, অজান্তে অনেকখানি রক্ত দান করতে হয়েছে মশাদের কাছে। 😊😊

যদি এটা পড়ে একটুখানি উপকৃত হন তাতে আমার ভালোলাগা। কিছু এড করার থাকলে বা কোন সাজেশন থাকলে কমেন্টে বলে দিন প্লিজ।

Leave a Comment